বাংলা ফন্ট

বইমেলায় স্টল বরাদ্দে অনিয়মের অভিযোগ

10-01-2018
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

বইমেলায় স্টল বরাদ্দে অনিয়মের অভিযোগ
ঢাকা: অমর একুশে গ্রন্থমেলায় স্টল বরাদ্দে বাংলা একাডেমি অনিয়ম ও অস্বচ্ছতার আশ্রয় নিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বঞ্চিত প্রকাশকরা। তাদের অভিযোগ, মানসম্পন্ন ও তারুণনির্ভর প্রকাশকদের দাবিয়ে রাখার জন্য একাডেমি 'অসম নীতি' অনুসরণ করেছে।

'বেহুলা বাংলা', 'খড়িমাটি', 'মেঘ', 'টাপুরটুপুর'সহ বেশ কয়েকটি প্রকাশনা সংস্থার সত্বাধিকারীরা অভিযোগ করেছেন, প্রকাশনার সংখ্যা ও মানে এগিয়ে থেকে বাংলা একাডেমির সকল শর্ত পূরণ করার পরও তাদের স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়নি। ১১ জানুয়ারির মধ্যে স্টল বন্টন পুনঃর্বিবেচনা না করলে ১৩ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেয়ার কথাও জানিয়েছেন বঞ্চিত প্রকাশকরা।

মঙ্গলবার রাজধানীর কাটাবনের কনকোর্ড এম্পোরিয়ামের সামনে এক প্রতিবাদ সমাবেশে এসব কথা বলেন বঞ্চিত প্রকাশকরা। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন প্রকাশনা সংস্থা 'বেহুলা বাংলা'র চন্দন চৌধুরী, মেঘ'র কর্ণধার শাহীন লতিফ, টাপুরটুপুরের পরিচালক মহিউদ্দিন মাসুম, কবি গিরীশ গৈরিক, মাহবুব মিত্র, মাহফুজ রিপন প্রমুখ।

শাহীন লতিফ বলেন, 'মেঘ প্রকাশনী এই পর্যন্ত ৬৭টি বই প্রকাশ করেছে। ৫০টি বই থাকলেই স্টল পাওয়ার নিয়ম। তবুও আমাকে স্টল দেওয়া হয়নি। বাংলাবাজারের অনেক প্রকাশনী থেকে আমার প্রকাশনীর ভালো মানের বই রয়েছে। নতুন প্রকাশকদের দাবিয়ে রাখার জন্যই এই প্রচেষ্টা।'

ইমদাদুল হক মিলন, মহাদেব সাহা, আখতার হুসেনের মতো বড় সাহিত্যিকদের বই থাকা সত্ত্বেও ছোটদের প্রকাশনী 'টাপুরটুপুর'কে স্টল বরাদ্দ না দেওয়ার প্রতিবাদ জানিয়ে এর পরিচালক মহিউদ্দিন মাসুম বলেন, 'এই বৈষম্য মেনে নেয়া যায় না। অবাক ব্যাপার হলো, তারুণ্যনির্ভর প্রকাশনাগুলো যেখানে ঠিকভাবে স্টল পাচ্ছে না, সেখানে মেলায় এবার প্যাভিলিয়নের সংখ্যা ১১টি থেকে বাড়িয়ে ২৫টি করা হয়েছে।'

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল

সর্বশেষ সংবাদ